Hepatology, কারণ ও প্রতিকার

জন্ডিসের কারণ ও করণীয়

বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবার খাচ্ছেন? আপনি কি জানেন নিজের শরীরের কতটা ক্ষতি করছেন? আমরা অনেকেই হয়তবা জানিনা অস্বাস্থ্যকর খাবার জন্ডিসের অন্যতম কারণ। জন্ডিস নিজে কোনো রোগ না হলেও একে মোটেও অবহেলা করা ঠিক নয়। লিভারের রোগই জন্ডিসের অন্যতম প্রধান কারণ। আমরা যা খাই, তা লিভারে প্রক্রিয়াজাত হয়। আর অস্বাস্থ্যকর খাবার লিভারকে অসুস্থ করে দেয়। ফলে দেখা দেয় জন্ডিস।

জন্ডিস আসলে কি? সাধারনত চোখের সাদা অংশ হলুদ হয়ে যাওয়াকে আমরা জন্ডিস বলে থাকি। জন্ডিসের মাত্রা বেশি হলে হাত- পা হলুদ হয়ে যেতে পারে। অনেক সময় পায়খানা সাদা হয়। শরীরে চুলকানি হতে পারে। তাছাড়াও শারীরিক দুর্বলতা সহ জ্বর, বমি, পেটব্যথা, ক্ষুদামন্দা ইত্যাদি লক্ষণ থাকতে পারে।

আসুন আমরা জন্ডিসের কারণ সমূহ জেনে নেই।

  • জন্ডিসের অন্যতম প্রধান কারণ হেপাটাইটিস এ, বি, সি, ডি এবং ই ভাইরাস।
  • বংশগত কারণেও হতে পারে এই সমস্যাটি।
  • ঔষধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ায় হতে পারে জন্ডিস।
  • যেসমস্ত রোগের কারণে শরীরের রক্ত ভেঙ্গে যায় যেমন থ্যালাসেমিয়া ও হিমোগ্লোবিন ই ডিজিজ। এই সমস্ত কারণেও হতে পারে জন্ডিস।
  • পিত্তনালীর পাথর বা টিউমার এবং লিভার বা অন্য কোথাও ক্যান্সার হলেও জন্ডিস হতে পারে।
  • অতিরিক্ত মদ পান করা।
  • জীবাণুর সংক্রমণের কারণেও দেখা দিতে পারে জন্ডিস।

জন্ডিস রোগীর যত্নে কিছু বিশেষ বিষয়ের প্রতি লক্ষ্য রাখতে হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি অনুসরণ করে রোগীর চিকিৎসা সম্ভব।

জন্ডিসের চিকিৎসা শুরু করার আগেই এই রোগ হওয়ার কারণসমূহ খুঁজে বের করতে হবে। এরপর কারণ অনুযায়ী চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে।

  • রোগীকে শর্করা ও ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খেতে দিতে হবে।
  • জন্ডিসের রোগীকে পরিমাণমত পানি করাতে হবে।
  • পর্যাপ্ত পরিমাণে তাজা ফল বা ফলের রস খেতে দিতে হবে।
  • রোগীকে অবশ্যই ধূমপান ও মদপান পরিহার করতে হবে।
  • রান্নাসহ সকল কাজে বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে হবে।
  • সবসময় রোগীর হাত- পায়ের নখ কেটে ছোট করে রাখতে হবে।
  • রোগীকে পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রাম নিতে হবে।
  • আক্রান্ত ব্যক্তিকে সবসময় পরিষ্কার- পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
  • গ্লুকোজ, আখের রস, আনারস ইত্যাদি জন্ডিসে আক্রান্ত রোগীর জন্য ভালো।

জন্ডিসে আক্রান্ত রোগীর যত্নে কিছু বিশেষ সতর্কতা মেনে চলতে হবে।

  • এই সমস্যায় আক্রান্ত রোগীর অ্যাসপিরিন বা ঘুমের ঔষধ খাওয়া মোটেও ঠিক নয়।
  • রোগীকে অতিরিক্ত হলুদ দিয়ে রান্না করা খাবার খাওয়ানো যাবে না।
  • অনেক সময় দেখা যায় এই সমস্যায় আক্রান্ত রোগীকে গাছের শিকড় খেতে দেওয়া হয়। অথচ এটা মোটেও ঠিক নয়।
  • অধিকাংশ সময় মনে করা হয় জন্ডিস আক্রান্ত ব্যক্তিকে মাত্রাতিরিক্ত পানি পান করানো ভালো। কিন্তু এইটা আসলে একটা ভ্রান্ত ধারনা।
  • এই রোগে আক্রান্ত রোগীকে সব ধরনের খাবার খেতে দিতে হবে।
  • অনেক সময় দেখা যায় জন্ডিসের রোগীর ব্যবহৃত জিনিসপত্র আলাদা করে দেওয়া হয়। কিন্তু এটা মোটেও ঠিক নয়। কারণ জন্ডিস ছোঁয়াচে কোনো রোগ নয়।

জন্ডিস আসলে নিজে কোনো রোগ নয়। এটি অন্য কোনো রোগের লক্ষণ। একটু সচেতন হলেই আমরা এই সমস্যাকে প্রতিরোধ করতে পারি। তাই আসুন জন্ডিস সম্পর্কে নিজে সচেতন হই এবং অন্যকেও এই বিষয়ে সচেতন করি।

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Leave a Reply