Medicine, কারণ ও প্রতিকার

কোমর ও হাঁটু ব্যথার কারণ এবং প্রতিকারে করণীয়

এমন মানুষ হয়ত পাবেন না যিনি তার জীবনে একবারও কোমর বা হাঁটুতে ব্যথা অনুভব করেন নি। আমরা অনেকেই হয়তবা জানি না কেন এই সকল স্থানে ব্যথা হয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে চল্লিশ বা চল্লিশের বেশি বয়স্ক ব্যক্তিদের এই সমস্যা দেখা দেয়। যেহেতু কোনো কারণ ছাড়াই এই ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দেয় সেহেতু আমরা অনেকেই এই সমস্যায় আক্রান্ত হলে চিন্তিত হয়ে পড়ি। অথচ একটু সচেতন হলেই আমরা কোমর ও হাঁটুর ব্যথা প্রতিকার করতে পারি।

আসুন আমরা কোমরে ব্যথার হওয়ার কারণ সমূহ জেনে নেই।

  • মেরুদন্ডের মাংসপেশি মোচকানো বা আংশিক ছিঁড়ে যাওয়া।
  • খুব বেশি ভারী ওজনের কিছু তোলা
  • একটানা বসে বা দাঁড়িয়ে কোনো কাজ করা
  • মেরুদন্ডে আঘাত পাওয়া
  • বয়স বাড়ার কারণে মেরুদন্ড ক্ষয় বা বৃদ্ধি
  • কোমরের রক্তবাহী নালীর সমস্যা
  • অপুষ্টিজনিত সমস্যা
  • অতিরিক্ত ওজন

হাঁটুর ব্যথার কারণ সমূহ নিম্নরূপঃ

  • হাঁটুতে আঘাত লাগা বা মচকানোর কারণে মাংসপেশী আংশিক ছিঁড়ে যাওয়া
  • হাঁটুর ভিতরে তরল জাতীয় পদার্থ থাকে। একে বারসা বলে। অতিরিক্ত হাঁটাহাঁটির কারণে এই বারসা ফুলে যায় এবং হাঁটুতে ব্যথা হয়।
  • জন্মগত ভাবে বা আঘাত জনিত কারণে হাঁটুর বাটি সরে গেলে হাঁটুতে ব্যথা হয়।
  • গোড়ালির ব্যথার কারণেও অনেক সময় হাঁটুতে ব্যথা হয়
  • বিভিন্ন প্রকার ইনফেকশন যেমনঃ সেপটিক, যক্ষা এবং যৌনবাহিত কিছু রোগ (সিফিলিস, গনোরিয়া) এর কারণে হাঁটু ফুলে যায় এবং ব্যথা হয়।

হাঁটু এবং কোমরের ব্যথা খুবই যন্ত্রণাদায়ক। এর থেকে পরিত্রাণের জন্য বিশেষ কিছু নিয়ম মেনে চলা যেতে পারে।

কোমরের ব্যথা প্রতিকারে করণীয়ঃ

  • এই সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তির বিছানা শক্ত, চওড়া ও সমান হতে হবে। শক্ত বিছানা বলতে সমান কিছুর উপর পাতলা তোশক বিছানোকে বোঝায়।
  • উপুড় হয়ে শোয়া যাবে না।
  • ১০ মিনিটের বেশি দাঁড়িয়ে থাকবেন না।
  • দীর্ঘক্ষণ হাঁটতে বা দাঁড়াতে হলে উঁচু হিল পরবেন না।
  • অনেকক্ষণ দাঁড়াতে হলে কিছুক্ষণ পর পর শরীরের ভর এক পা থেকে অন্য পায়ে নিন।
  • বসে থাকার সময় কোমরের পিছনে সাপোর্ট নিন।
  • নরম গদি বা স্প্রিংযুক্ত সোফা বা চেয়ারে বসবেন না।
  • তেল বা চর্বিযুক্ত খাবার, ডালজাতীয় খাবার, মিষ্টিজাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে।
  • খাদ্য তালিকায় বেশি পরিমাণে শাকসবজি, ফলমূল রাখতে হবে।
  • নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করুন এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রাম নিন।

হাঁটুর ব্যথা প্রতিকারে করণীয়ঃ

  • পরিমিত বিশ্রাম নেওয়া।
  • হাঁটুতে ইলাস্টিক কমপ্রেসন বা নী ক্যাপ ব্যবহার করা।
  • শোয়ার সময় পায়ের নিচে বালিশ দিয়ে হাঁটু উঁচু করে রাখা।
  • পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ‘ডি’ সমৃদ্ধ খাবার যেমনঃ ছোট মাছ, দুধ, ডিম খাওয়া।
  • হিল জুতা দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। তাই যতটা সম্ভব এই ধরনের জুতা ব্যবহার না করা।
  • নিয়মিত ব্যায়াম ও খাদ্য নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে ওজন কমাতে হবে। এতে হাঁটুর ব্যথাও কমবে।

বয়সভেদে বিভিন্ন কারণে কোমর ও হাঁটুতে ব্যথা হয়ে থাকে। দীর্ঘদিন ব্যথা থাকলে রোগীর কোমর ও পায়ের মাংসপেশীর ক্ষমতা কমে আসে। একটা সময় দেখা যায় রোগী চলাফেরার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে। তাই ব্যথা দীর্ঘস্থায়ী ও তীব্র হলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Leave a Reply