টেস্টিকুলার টরশন/মোচড়ানো অণ্ডকোষ (Testicular torsion)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

রোগটি টরশন অব টেসটিস (Torsion of Testis) এবং স্পারম্যাটিক কর্ড টরশন (Spermatic Cord Torsion) নামেও পরিচিত ।

অণ্ডকোষ স্বাভাবিক স্থান থেকে ঘুরে গেলে এবং এই কারণে অণ্ডকোষের থলিতে রক্তবহনকারী স্পারম্যাটিক কর্ড মুচড়িয়ে গেলে টেস্টিকুলার টরশন (Testicular torsion) এর সৃষ্টি হয়। রক্ত প্রবাহের অভাবের জন্য স্থানটি ফুলে ওঠে এবং সেখানে তীব্র ব্যথা সৃষ্টি হয়। ১২ থেকে ১৬ বছর বয়সীদের মধ্যে টেস্টিকুলার টরশন বেশি দেখা দেয়। তবে যে কোনো বয়সের পুরুষদেরই এই সমস্যাটি দেখা দিতে পারে, এমনকি জন্মগ্রহণের পূর্বে মাতৃগর্ভেও শিশুর টেস্টিকুলার টরশন হতে পারে।       

সাধারণত টেস্টিকুলার টরশন নিরাময়ের জন্য জরুরি ভিত্তিতে সার্জারি করা প্রয়োজন। যদি কয়েক ঘন্টার মধ্যে চিকিৎসা করা যায় তাহলে অণ্ডকোষ রক্ষা করা সম্ভব। কিন্তু চিকিৎসা করতে দেরি হলে অণ্ডকোষ স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে এবং আক্রান্ত ব্যক্তি পিতৃত্ব অর্জনের ক্ষমতা হারাতে পারেন। রক্তের প্রবাহ দীর্ঘ সময়ের জন্য বাধাগ্রস্ত হলে অণ্ডকোষ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলে সেটি অপসারণের প্রয়োজন হতে পারে।

কারণ

অণ্ডকোষ স্বাভাবিক স্থান থেকে ঘুরে গেলে এবং এই কারণে অণ্ডকোষের থলিতে উদর থেকে রক্তবহনকারী স্পারম্যাটিক কর্ড মুচড়িয়ে গেলে টেস্টিকুলার টরশন হয়ে থাকে। যদি অণ্ডকোষ বারবার ঘুরতে থাকে তাহলে রক্তের প্রবাহ সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হয়ে যেতে পারে এবং এই কারণে আরও জটিল সমস্যার সৃষ্টি হয়।

টেস্টিকুলার টরশনে আক্রান্ত বেশিরভাগ ব্যক্তিদের অণ্ডকোষের থলির ভিতর অণ্ডকোষ মুক্তভাবে ঘোরার একটি বংশগত প্রবণতা থাকে। বংশগত এই বিষয়টি অনেক সময় দুটি অণ্ডকোষকেই প্রভাবিত করে। তবে এই প্রবাণতাযুক্ত সকল ব্যক্তিদের টেস্টিকুলার টরশন হয় না।

টেস্টিকুলার টরশনের সঠিক কারণ এখনো অজানা। তবে নিম্নে লিখিত বিষয়গুলি রোগটির সাথে সম্পর্কযুক্ত হতে পারে:

  • অনিয়ন্ত্রিত ব্যায়াম বা শারীরিক কার্যকলাপ।
  • অণ্ডথলিতে আঘাত।
  • অতিরিক্ত ঠান্ডা পরিবেশ।
  • বয়ঃসন্ধির সময় শুক্রাশয়ের দ্রুত বৃদ্ধি।
  • ঘুমের সমস্যা।

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

চিকিৎসা

 চিকিৎসকেরা এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিম্নলিখিত ঔষধগুলি গ্রহণ করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন: 

ডাঁটা সেন্টারে কোন প্রকার তথ্য পাওয়া যায়নি

চিকিৎসকেরা এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিম্নলিখিত টেস্টগুলি করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন:  

সার্জিকাল ডিটরশন (Surgical detorsion)

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

সাধারণত নিম্নে লিখিত বিষয়গুলি টেস্টিকুলার টরশনের ঝুঁকি বৃদ্ধি করে:

  • বয়স: ১২ থেকে ১৬ বছর বয়সীদের টেস্টিকুলার টরশন হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • পূর্বে টেস্টিকুলার টরশন হওয়া: পূ্র্বে আপনার টেস্টিকুলার টরশন হলে এবং সেটি কোনো চিকিৎসা ছাড়া সেরে গেলে, পুনরায় সমস্যাটি দেখা দিতে পারে। ব্যথার পরিমাণ যতো হবে, স্থায়ীভাবে অণ্ডকোষের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনাও ততো বেশি হবে।
  • পরিবারের অন্য ব্যক্তিদের টেস্টিকুলার টরশন থাকা: পরিবারের অন্য ব্যক্তিদের টেস্টিকুলার টরশন থাকলে আপনারও এটি হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার সম্ভাবনা ৪ গুণ বেশি।

জাতিঃ শ্বেতাঙ্গ ও হিস্প্যানিকদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা থাকে। কৃষ্ণাঙ্গ ও অন্যান্য জাতির মানুষের মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার সম্ভাবনা ১ গুণ কম।

 

সাধারণ জিজ্ঞাসা

উত্তরঃ টেস্টিকুলার টরশন/মোচড়ানো অণ্ডকোষের প্রধান লক্ষণ হচ্ছে তীব্র ব্যথা। টেস্টিকুলার টরশন অণ্ডকোষে রক্ত প্রবাহের পরিমাণ কমিয়ে দেয় এবং এর ফলে অণ্ডকোষ ক্রমশ অকার্যকর হয়ে যাওয়ার কারণে তীব্র ব্যথার সৃষ্টি হয়। অন্যান্য কিছু কারণেও তীব্র ব্যথা হতে পারে, তাই তীব্র ব্যথা হলে অতি দ্রুত হাসপাতালের জরুরী বিভাগে যেতে হবে। এছাড়া টেস্টিকুলার টরশন হলে আরও কিছু পরীক্ষা করা প্রয়োজন । 

উত্তরঃ না, ব্যথা ছাড়া টেস্টিকুলার টরশন হওয়া সম্ভব নয়। 

হেলথ টিপস্‌

কিছু ব্যক্তির অণ্ডথলির ভিতর অণ্ডকোষ মুক্তভাবে ঘোরার একটি বংশগত প্রবণতা থাকে। এ ধরনের প্রবণতা থাকলে টেস্টিকুলার টরশন প্রতিরোধ করার একমাত্র উপায় হল সার্জারির মাধ্যমে দুটি অণ্ডকোষকে অণ্ডকোষের থলির ভিতরের অংশের সাথে সংযুক্ত করা।

 

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

প্রফেসর ডাঃ জামানুল ইসলাম

ইউরোলজি ( মূত্রতন্ত্রের সার্জারী) ( Urology)

প্রফেসর ডাঃ এম.এ সালাম

ইউরোলজি ( মূত্রতন্ত্রের সার্জারী) ( Urology)

প্রফেসর ডাঃ সোহরাব

ইউরোলজি ( মূত্রতন্ত্রের সার্জারী) ( Urology)

সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ সালাউদ্দিন ফারুক

ইউরোলজি ( মূত্রতন্ত্রের সার্জারী) ( Urology)

এমবিবিএস, এফসিপিএস(সার্জারী), এমএস(ইউরোলজি)