টেরিজিয়াম (Pterygium)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

যারা অধিক সময় বাইরে থাকেন তাদের চোখে টেরিজিয়াম নামক সমস্যা দেখা দিতে পারে। এটা বেশিরভাগ সময় সার্ফারসদের আক্রান্ত করে বলে এই রোগ ‘সার্ফারস আই’ নামে পরিচিত। এই রোগে যে কেউ আক্রান্ত হতে পারে, এমনকি শিশুরাও বিশেষ করে যদি তারা বাইরে বের হওয়ার সময় সানগ্লাস ব্যবহার না করে।

এই রোগে আক্রান্ত ব্যাক্তির চোখের সাদা অংশে গোলাপী বর্ণের হয় এবং মাংসল টিস্যু বৃদ্ধি পায়। এই বৃদ্ধি চোখের যে অংশ নাকের পাশে থাকে সেদিক থেকে চোখের কেন্দ্রের দিকে অগ্রসর হয়।

এটি এমন একটি লেশন বা ক্ষত যা ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পেতে থাকে এবং এর থেকে ক্যান্সার হওয়ার কোন সম্ভাবনা থাকে না। কখনো কখনো একটা নির্দিষ্ট সময় পর এর বৃদ্ধি বন্ধ হয়ে যায়। যখন এটা চরম অবস্থায় পৌঁছায় তখন তা চোখের পিউপিলকে আবৃত করে দেয় এবং দৃষ্টিশক্তিতে অসুবিধা সৃষ্টি করে।

টেরিজিয়াম এক বা উভয় চোখকেই আক্রান্ত করতে পারে। যখন এটা উভয় চোখকে আক্রান্ত করে তখন তাকে ‘বাইল্যাটারাল টেরিজিয়াম’ বলে।


কারণ

এই রোগের সঠিক কারণ সম্পর্কে এখনো জানা যায়নি। তবে অতিরিক্ত আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির (UV) সংস্পর্শে থাকলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে বলে ধারণা করা হয়। যাদের উষ্ণ আবহাওয়া এবং রোদ অথবা অনেক বাতাস হয় এমন পরিবেশে অনেকক্ষণ থাকতে হয় তাদের এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বেশি। এছাড়াও সবসময় পরাগরেণু, ধূলাবালি, ধূমপান অথবা ঝড়ো হাওয়ার সংস্পর্শে থাকলে এর ঝুঁকি বেড়ে যায়। পাশাপাশি ত্বক ফ্যাকাশে হলে এবং চোখের বর্ণ কালো ব্যাতীত অন্য কোন বর্ণের হলেও এই রোগ হতে পারে। 

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

নিম্নলিখিত বিষয়ের কারণে এই রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়ঃ

  •   UV রশ্মি
  •   সূর্যরশ্মির সংস্পর্শ
  •   চোখে ধূলাবালি প্রবেশ করলে

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের এ রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। মহিলাদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম।

জাতিঃ কৃষ্ণাঙ্গদের এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। শ্বেতাঙ্গ, হিস্পানিক এবং অন্যান্য জাতিদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ২ গুণ কম।  


সাধারণ জিজ্ঞাসা


উত্তরঃ না, ক্যাটার‍্যাক্ট বয়স বৃদ্ধি পেলে হয়ে থাকে এবং এ অবস্থায় চোখের লেন্সের ফোকাস করার ক্ষমতা কমে যায়। অন্যদিকে টেরিজিয়ামে আক্রান্ত হলে চোখের পৃষ্ঠে পরবর্তন দেখা যায় এবং এটা অল্প বয়সী মানুষ যাদের চোখে ছানি রয়েছে তাদের দেখা যায়। ক্যাটার‍্যাক্ট সাধারণত অল্প বয়সে দৃষ্টিশক্তির উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।   

উত্তরঃ যদি এই রোগের কারণে কর্ণিয়াতে বিকৃতি দেখা যায়, সে ক্ষেত্রে সফল অপারেশনের মাধ্যমে দৃষ্টিশক্তির উন্নতি সম্ভব এবং কখনো কখনো চশমা ব্যবহারের প্রয়োজন হতে পারে। কোন কোন ক্ষেত্রে একটি সফল অপারেশনের পরও টেরিজিয়াম ছাড়াই কর্ণিয়াতে ক্ষত বা বিকৃতি থেকে যেতে পারে। 

উত্তরঃ এই রোগের কারণে অন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম তবে চিকিৎসা করা না হলে দৃষ্টিশক্তিতে অসুবিধা দেখা দিতে পারে।

হেলথ টিপস্‌

এই সমস্যা প্রতিরোধের কয়টি উপায় হলঃ

  • আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি নিরোধক সানগ্লাস ব্যবহার করতে হবে।
  • বাইরে বের হওয়ার সময় সানগ্লাস এবং মাথায় টুপি ব্যবহার করুন।
  • ধূমপান, ধূলাবালি, ঝড়ো হাওয়া এবং রাসায়নিক বর্জ্য পদার্থ এড়িয়ে চলুন।
  • কর্মক্ষত্রে চোখের ক্ষতি হতে পারে এমন কাজের সময় প্রতিরক্ষামূলক গগলস ব্যবহার করুন।


বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

প্রফেসর ডাঃ শরফুদ্দিন আহমেদ

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

প্রফেসর ডা:নজরুল ইসলাম

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

ডাঃশাহ-নুর হাসান

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

Fcps,Frcs

প্রফেসর ডা: দীন মো: নূরুল হক

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

প্রফেসর ডাঃ দিপক নাগ

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

MBBS, FCPS(OPTH), MSc(Epid,UK), MSc(CEH,UK), FRF(India)

প্রফেসর ডাঃ দীপক কুমার নাগ

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

ডাঃ ফেরদৌস আক্তার জলি

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)

প্রফেসর ডা: এ.এইচ.এম. এনায়েত হোসেন

অফথ্যালমোলজি ( চক্ষু) ( Ophthalmology)