বদহজম (Indigestion)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

বদহজমকে ডিস্পেপসিয়াও (Dyspepsia) বলা হয়।

বদহজম কোনো রোগ নয়। এর ফলে তলপেটে ব্যথা হয় এবং খাওয়া শুরু করতেই পেট ভরে যাওয়ার অনুভূতি হয়। ব্যক্তিবিশেষে এটির ধরন ভিন্ন হতে পারে। বদহজমের লক্ষণ প্রায়ই বা মাঝে মাঝে দেখা যায়। বদহজম Digestive disease বা পৌষ্টিক রোগের লক্ষণ হতে পারে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে এটি কোনো ধরনের রোগ ছাড়া এমনিতেই দেখা দিতে পারে।  দৈনন্দিন জীবনযাত্রার অভ্যাসগত পরিবর্তন এবং ঔষধ খাওয়ার মাধ্যমে এটি দূর করা যায়। 

কারণ

বদহজমের সাধারণ কারণগুলো হলো:

  • মাত্রাতিরিক্ত খাওয়া বা খুব তাড়াতাড়ি খাবার খাওয়া।
  • চর্বি এবং মসলাযুক্ত খাবার খাওয়া।
  • ক্যাফেইন (Caffeine), অ্যালকোহল, চকোলেট বা কার্বনেটযুক্ত পানীয় খাওয়া।
  • ধূমপান করা।
  • উদ্বিগ্ন থাকা।
  • অ্যান্টিবায়োটিক, পেইনকিলার বা ব্যথানাশক ঔষধ এবং আয়রনসমৃদ্ধ পদার্থ গ্রহন করা।

মাঝে মাঝে অন্য কোনো ধরনের পরিপাক্তন্ত্রের রোগের কারণে বদহজম হতে পারে, যেমন-

  • গ্যাস্ট্রাইটিস (Gastritis)
  • পাকস্থলীর আলসার (Peptic ulcers)
  • সিলিয়াক ডিজিজ (Celiac disease)
  • পিত্তথলির পাথর (Gallstones)
  • কোষ্ঠ্যকাঠিন্য (Constipation)
  • অগ্ন্যাশয়ের প্রদাহ (প্যানক্রিয়াটাইটিস)
  • পাকস্থলীর ক্যান্সার (Stomach cancer)
  • অন্ত্রের প্রতিবন্ধকতা (Intestinal blockage)
  • অন্ত্রে রক্ত প্রবাহ কমে যাওয়া (ইস্কেমিয়া)

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন

চিকিৎসা

 চিকিৎসকেরা এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিম্নলিখিত ঔষধগুলি গ্রহণ করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন:  

esomeprazole lansoprazole
omeprazole pantoprazole
simethicone bismuth subsalicylate

চিকিৎসকেরা এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিম্নলিখিত টেস্টগুলি করার পরামর্শদিয়ে থাকেন:  

ব্লাড গ্লুকোজ, ফাস্টিং (Blood Glucose, Fasting)
ইলেক্ট্রোলাইটস, সেরাম (Electrolytes, serum)
সি-বি-সি (কমপ্লিট ব্লাড কাউন্ট) (CBC, Complete Blood Count)
ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম (ই-সি-জি) (Electrocardiogram, ECG)

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম। মহিলাদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে।

জাতিঃ শ্বেতাঙ্গ ও কৃষ্ণাঙ্গদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম। হিস্প্যানিক এবং অন্যান্য জাতির মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে।

সাধারণ জিজ্ঞাসা

উত্তরঃ দৈনন্দিন জীবনযাত্রার অভ্যাসগত পরিবর্তনের মাধ্যমে এর চিকিৎসা করা যায়। ক্যাফেইন খাওয়া কমাতে হবে, মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে। NSAID জাতীয় ঔষধ এড়িয়ে চলতে হবে হবে। ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। বেশি মশলাযুক্ত খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে এবং একসাথে অনেক বেশি খাবার গ্রহণ করা যাবে না।

হেলথ টিপস্‌

বদহজমের মাত্রা মৃদু হলে নিম্নলিখিত অভ্যাসগত পরিবর্তনের মাধ্যমে এটি কমানো সম্ভবঃ

  • খাবার ধীরে ধীরে চিবিয়ে খেতে হবে।
  • চর্বি বা মসলাযুক্ত খাবার,ক্যাফেইন (Caffeine), অ্যালকোহল, চকোলেট বা কার্বনেটযুক্ত পানীয় ও ধূমপান এড়িয়ে যেতে হবে।
  • নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে।
  • ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে কারণ ওজন বেশি হয়ে গেলে তা তলপেটে ও পাকস্থলীতে চাপ সৃষ্টি করে এবং যার ফলে অন্ননালীতে এসিড সৃষ্টি হয়।
  • পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে।

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

ডা: শাহাজাদা সেলিম

এন্ডোক্রাইনোলজি এন্ড মেটাবলিজম ( হরমোন) ( Endocrinology & Metabolism), ডায়াবেটোলজিষ্ট ( Diabetologist)

প্রফেসর ডা: মো: হাসান মাসুদ

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

ডা: এম.এ হাছানাত

এন্ডোক্রাইনোলজি এন্ড মেটাবলিজম ( হরমোন) ( Endocrinology & Metabolism)

প্রফেসর মো: আনিছুর রহমান

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

প্রফেসর ডাঃমোঃ হাফিজুর রহমান

এন্ডোক্রাইনোলজি এন্ড মেটাবলিজম ( হরমোন) ( Endocrinology & Metabolism)

ডা: চঞ্চল কুমার ঘোষ

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

ডাঃ শাহাজাদা সেলিম

এন্ডোক্রাইনোলজি এন্ড মেটাবলিজম ( হরমোন) ( Endocrinology & Metabolism)

প্রফেসর ডা: এ.এস.এম.এ রাইহান

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)