ডিজলোকেশন অফ দি প্যাটেলা (Dislocation of the patella)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

আমাদের হাঁটুর প্যাটেলা যদি সঠিক স্থানে থাকে তাহলে আমাদের হাটতে, দৌঁড়াতে, বসতে, দাঁড়াতে এবং চলাফেরা করতে কোনোসমস্যা হয় না। যখন এটি স্বাভাবিক জায়গা থেকে সরে যায় তখন ব্যথাসহ অন্যান্য সমস্যা দেখা দেয়। আমাদের উরুতে ফিমার নামক যে হাড় রয়েছে তার প্রান্তীয়অংশটি ভি আকৃতির হয়ে থাকে এবং এর সাথেই প্যাটেলাটি যুক্ত থাকে। স্বাভাবিক অবস্থায় প্যাটেলাটি তার নির্দিষ্ট নিজস্ব জায়গায় অবস্থান করে কিন্তু অনেক সময় বিভিন্ন সমস্যার কারণে প্যাটেলাটি তার স্বাভাবিক অবস্থান থেকে সরে যায়। হাঁটুতে আঘাত লাগা অথবা পড়ে যাওয়ার কারণে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে।

যদি আপনার হাঁটুর প্যাটেলা আংশিকভাবে ডিজলোকেটেড (স্থানচ্যুত) হয় তাহলে চিকিৎসক আপনাকে শুধুমাত্র ব্যায়াম করারপরামর্শ দিবেন। ব্যায়াম করার মাধ্যমে আপনার উরুর মাংসপেশী গুলো শক্তিশালী হয়। যার ফলে প্যাটেলা তার নিজস্ব জায়গায় অবস্থান করে। এই সমস্যাটির কারণে প্যাটেলার নিম্নাংশ এবং থাইবোনের শেষাংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এই কারণে পায়ে ব্যথা এবং আর্থ্রাইটিস হয়ে থাকে। আর্থ্রোসকোপিক সার্জারির মাধ্যমে এই ধরনের সমস্যা দূর করা হয়।


কারণ

আঘাত লাগার কারণে প্যাটেলা যখন তার নির্দিষ্ট নিজস্ব স্থান থেকে সরে যায় তখন ডিজলোকেশন অফ দি প্যাটেলা দেখা দেয়।মোচড় লাগা বা পড়ে যাওয়ারকারণে এই ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে। তরুণীবা কিশোরীদেরপ্যাটেলা অতি মাত্রায় নমনীয় থাকে। যার ফলে কোনো প্রকার আঘাত ছাড়াই মাঝে মাঝেতাদের এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। ফুটবল অথবা রাগবিখেলোয়াড়দের প্রায়ই এই ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। 

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

এই রোগের ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় গুলো নিম্নরূপ।

  • অধিক উচ্চতা।
  • অধিক ওজন।
  • প্যাটেলা তার নির্দিষ্ট নিজস্ব স্থানে অবস্থান না করে হাঁটুর জয়েন্টের উপরে অবস্থান কর।
  • পায়ের মাংসপেশী দূর্বল হলে।
  • পূর্বে ব্যক্তির হাঁটুতে লাগা বা প্যাটেলাতে ডিজলোকেশন দেখা দেওয়া অথবা পরিবারে কারো হাঁটুর সমস্যা থাকলে।


যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষ এবং মহিলাদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। 

জাতিঃ শেতাঙ্গ, কৃষ্ণাঙ্গ এবং এবং অন্যান্য জাতির মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যদিকে হিস্প্যানিকদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম।   


হেলথ টিপস্‌

এই রোগ প্রতিরোধে নিম্নলিখিত বিষয় গুলো অনুসরণ করতে হবে।

  • কাজ করার পূর্বে পা হলকা গরম করে নিতে হবে।
  • শারীরিক সুস্থতাবজায় রাখতে হবে যেমনঃ শক্তিমত্তা, নমনীয়তাএবংসহনশীলতা। হৃৎপিন্ড এবং রক্ত ধমনী গুলো সুস্থ্য রাখতে হবে।
  • খেলাধুলা করার পূর্বে প্যাটেলে সুরক্ষা প্রদানকারী উপকরণ যেমনঃ ব্যান্ডেজ,টেপ,ধনুর্বন্ধনী অথবা নী প্যাড ব্যবহার করতে হবে।

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

ডা: এ.এম ফরিদ উদ্দিন আহমেদ

অর্থোপেডিক সার্জারী ( হাড়) ( Orthopedic Surgery)

প্রফেসর ডা: সৈয়দ শহিদুল ইসলাম

অর্থোপেডিক সার্জারী ( হাড়) ( Orthopedic Surgery)

প্রফেসর ডা: আর আর কৈরি

অর্থোপেডিক সার্জারী ( হাড়) ( Orthopedic Surgery)